ই-কমার্স প্রমোশন এর পাঁচটি বিশাল ভুল

ই-কমার্স প্রমোশন এর পাঁচটি বিশাল ভুল, সকল প্রোডাক্ট এর প্রমোশন একত্র করা

অনেকেই ফেসবুকে দেখি তার প্রোডাক্টের ই-কমার্স প্রমোশন করেন এভাবে যে, সবগুলো product একসাথে করে তারপর একটা ইমেজ তৈরি করে product promote করেন। এভাবে অনেকেই চিন্তা করেন যে প্রোডাক্ট এর প্রমোশন হয়ে যাচ্ছে। এটা বরঞ্চ ভুল হতে পারে। আপনি ফেসবুকে যদি পোস্ট করেন সেক্ষেত্রে আপনাকে আলাদা আলাদা product টার্গেট করতে হবে। এমন হতে পারে যে আপনি ফ্রী টাইটানের ঘড়ি বিক্রি করতে চাচ্ছেন। এক্ষেত্রে আপনাকে ladies watch বয়সের টাইপ আলাদা করতে পারে। আপনি যদি ফেসবুকে পোস্ট করেন সেক্ষেত্রে product এর target audience কি হবে তা নির্ধারণ করতে হবে। সকল প্রডাক্টের প্রমোশন একত্রে করতে গেলে যা হয় যে, সকল বাজেট শেষ হয়ে যাচ্ছে কিন্তু কোন প্রোডাক্ট সেল হয়নি।

ই-কমার্স প্রমোশন

product detail পেইজে লিঙ্ক না দেয়া

দেখা যায় আপনি যে প্রডাক্টটি sale করছেন সেই product এর নির্দিষ্ট details page থাকতে পাবে। হতে পারে থার্ড পার্টি ই-কমার্স সাইটে sale করছেন। ফেসবুকে সাইটটির লিংক দিতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার customer চাইলে product detals পেইজে ভিজিট করতে পারবেন। এরকম ভাবে ফেইসবুক বা অন্য যে সাইটে  ই-কমার্স প্রমোশন করছেন সেই সাইটে আপনি অর্ডার  পেয়ে যাবেন।

Product প্রমশনের জন্য শুধুমাত্র facebook কে ব্যবহার করা

ফেসবুকে বাদেও অনেক social media আছে যেখানে product promotion করা যেতে পারে। ইউটিউবে কেন বাদ দিচ্ছেন? আসলে এখন Youtube হচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম search engine। বুঝতে হবে যে ইউটিউবে ভালো ভিজিটর আছে। Youtube-এ চ্যানেল খুলে সেখানে আপনাদের আলাদা আলাদা ভিডিও পোস্ট করুন। ভালো একটি টাইটেল দিন। ভালো কিছু কিওয়ার্ড দিন। এক্ষেত্রে ভিজিটররা একটি ত্রিমাত্রিক দৃশ্যায়ন পাবে। পর্যাপ্ত ট্যাগ ব্যবহার করুন। এছাড়াও টুইটারে সেই product এর ভিডিও লিংক শেয়ার করতে পারেন। এভাবে আপনি আপনার customer base বাড়াতে পারেন।

বিশাল মার্কেট কে টার্গেট করা

আপনার একটি নির্দিষ্ট অডিয়েন্স বেজ থাকতে পারে। এবং অবশ্যই আপনার প্রডাক্টের দিকে তাকাতে হবে। অডিয়েন্সকে টার্গেট করে আপনার সকল ক্যাম্পেইন এবং promotional activities থাকতে হবে।

Ecommerce website  না থাকা

হতে পারে ফেসবুকে আপনার ব্যাবসা হচ্ছে তাহলে online website থাকার প্রয়োজনীয়তা কি? E commerce website থাকলে যেটা হচ্ছে আপনার প্রোডাক্টের ডিটেইলস ফেসবুকে দিতে পারছেন। ফেসবুক একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এটা কোন সেলস মেশিন নয়। ই-কমার্স সাইট হলে ভিজিটর প্রোডাক্টের কম্পেয়ার করতে পারছি। ই কমার্স সাইট থাকা আপনার সেলসকে অনেক বৃদ্ধি করছে।

এছাড়াও আপনারা যারা অনলাইনে ইকমার্স ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন তাদের জন্য রয়েছে www.shopingbooking.com। এটি অনলাইনে ইকমার্স ব্যাবসা করার জন্য অত্যন্ত একটি কার্যকর পদ্ধতি।

 

ইকমার্স ওয়েব এর ক্ষেত্রে সাতটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

ইকমার্স ওয়েব ডেভলাপমেন্টের ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে এমন সাতটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আজকের লেখাটিতে আমরা জানবোঃ

প্রথম বিষয়টি হচ্ছে ডোমেইন 

ডোমেইন নেইম রেজিস্ট্রেশনের সময় আপনাকে অবশ্যই খেয়াল করতে হবে আপনি যেন ছোট্ট এবং সহজ নাম পছন্দ করেন। ডোমেইন নেইমের বানান যেন জটিল না হয়।

ওয়েব হোস্টিং

ওয়েব হোস্টিং শুরু করতে হবে একদম ছোট্ট একটি ইকমার্স  প্যাকেজ থেকে। আপনি যদি শুরুতেই বড় রকমের webhosting ক্রয় করেন, আপনাকে কিন্তু তার খরচ বহন করতে হবে। যা আপনার সাম্প্রতিক ব্যায় ভাড় বাড়িয়ে দেবে।

ই-কমার্স platform প্রয়োজন  বুঝে পছন্দ করুন

ইকমার্স

ই-কমার্স platform এর ক্ষেত্রে আপনাকে বিভিন্ন বিষয় মাথায় রাখতে হবে। আপনি কি রকমের সাইট চাচ্ছেন, ভিজিটর কিভাবে সমন্বয় করবে, আপনার এখানে অন্য কোন বিক্রেতা বিক্রি করতে পারবে কিনা ইত্যাদি। আপনি ওয়ার্ডপ্রেস পছন্দ করতে পারেন। ওয়ার্ডপ্রেস পছন্দ করলে আপনাকে ই-কমার্স প্লাগইন ইনস্টল করতে হবে। যেসব প্লাগিন ব্যাবহার করে আপনার ব্লগ সাইট থেকে সহজেই ই-কমার্স সাইটের পরিণত করতে পারছে। আপনি আরো পছন্দ করতে পারেন ওএস কমার্স, ওপেন চার্ট, জেন্ড চার্ট, ম্যাজেন্ট্রো কিংবা ভিস্তা সপ এর মত প্রফেশনাল ই-কমার্স স্ক্রিপ্টগুলো। প্রয়োজন ভেবে আপনাকে এগুলো পছন্দ করতে হবে। আপনি যদি ecommerce site এর পাশাপাশি একটি ব্লগ চালাতে চান, অবশ্যই আপনাকে ওয়ার্ডপ্রেস platform পছন্দ করতে হবে।

Target market – বিশাল ওডিয়েন্স টার্গেট করা থেকে বিরত থাকুন

এমন ভুল অনেকেই করেন যে Target market পছন্দ করার ক্ষেত্রে কোনো নির্দিষ্ট লক্ষ্য বা গন্তব্য রাখেন না। আপনি হয়তো চিন্তা করবেন সবচাইতে বড় মার্কেটপ্লেসটি আমি শুরু করব। কিন্তু এভাবে আপনি কখনোই ই-কমার্স প্লাটফর্মে লাভবান হতে পারবেন না। আপনাকে অবশ্যই চিন্তা করতে হবে https://ajkerdeal.com/, https://www.rokomari.com এরকম বড় প্লাটফর্ম একদিনে শুরু হয়নি। এরকম সাইট গুলোর সাথে আপনি কখনো পাল্লায় টিকতে পারবেন না। সুতরাং আপনার পাল্লায়  যাওয়া উচিত হবে না। আপনার উচিত হবে আপনার market টিকে যতটা সম্ভব ছাঁটাই করে ছোট করে নিয়ে আসা। ছোট একটি মার্কেট আপনাকে যথেষ্ট heavy traffic দেবে, healthy visitor দিবে এবং যারা নিয়মিত আপনার এখানে আসবে। আপনার market হবে আপনার মত করে। অনলাইনে যে ব্যাপারটি niche marketing হিসেবে পরিচিত অর্থাৎ একটি target audience। আপনাকে সেই অনুযায়ী মার্কেটিং করতে হবে। বাংলাদেশের এই ব্যাপারটি একেবারেই ফলো করা হয় না। তাই দেখা যায় অনেকেই ভালো বাজেট নিয়ে নামেন কিন্তু টিকে থাকতে পারে না।

Product variation and supply – পর্যাপ্ত সুযোগ থাকতে হবে

আপনাকে অবশ্যই যে প্রোডাক্ট নিয়ে আপনি নামবেন সেই প্রোডাক্টের variation এর প্রতি রাখতে হবে। Color variation থাকতে পারে, size variation থাকতে পারে। যেটি dimension variation বলা যেতে পারে। আপনি যে প্রোডাক্ট বিক্রি করবেন সেই প্রোডাক্ট এর প্রয়োজন অনুযায়ী সাপ্লাই পাচ্ছেন কিনা তা নিশ্চিত করুন। প্রোডাক্ট কেনার জন্য কোথায় যেতে হবে, কোথা থেকে এইসব প্রোডাক্টগুলো আপনি সংগ্রহ করবেন ইত্যাদি। আপনার প্রোডাক্টির চাহিদা তৈরি হচ্ছে কিন্তু আপনি সাপ্লাই দিতে পারছেন না। এসব বিষয়গুলো প্রথম ভেবে নিয়ে অবশ্যই আপনি ই-কমার্স বিজনেসে নামবেন।

Payment method ক্ষেত্রেও পর্যন্ত সুযোগ রাখুন

বাংলাদেশ যদিও এখনো online payment ব্যাপারটা জনপ্রিয় না বা চালু  হয় নাই। সুতরাং দেখা যাচ্ছে আপনার ক্যাস ট্রানজেকশন করতে হচ্ছে। অপর একটি মাধ্যম হচ্ছে বিকাশ অথবা ডাচ বাংলা এর মত মোবাইল ব্যাংকিং। এক্ষেত্রে আপনি আপনার পেমেন্ট এর variation ইউজারদেরকে দিতে পারছেন।

Delivery method – কম খরচ ও কম সময়কে গুরুত্ব দিন

কিভাবে ডেলিভারি করবেন? একটি উপায় হচ্ছে আপনি ইন হাউজ delivery man দিয়ে ডেলিভারি করতে পারেন। বাংলাদেশে এগুলো বিশেষভাবে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে। বিশেষ করে হালকা বিক্রিগুলোর ক্ষেত্রে সাইকেলে করে ডেলিভারি ম্যান যারা থাকে তারা সহজেই ডেলিভারি দিতে পারেন। বাংলাদেশে http://ecourier.com.bd/ নামে একটি সার্ভিস রয়েছে। সাইকেল বেজড কুরিয়ার সার্ভিস। আপনার ডেলিভারির জন্য আরও কিছু উপায় থাকতে পারে। সুতরাং কিভাবে আপনি ডেলিভারী গুলো দিবেন সে ব্যাপারে আপনাকে চিন্তা করতে হবে।

এই ছিল সাতটি বিষয় যেগুলো ই-কমার্স সাইট তৈরি করতে আপনাকে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।

এছারাও আপনি https://shoppingbooking.com/ এ আপনার প্রোডাক্টের ইকমার্স ব্যাবসা করতে পারেন।

 

অপটিকাল ফাইবার ক্যাবলের মাধ্যমে ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে?

অপটিকাল ফাইবার ইন্টারনেট ছাড়া প্রায় একঘণ্টা থাকাও অসম্ভব। ইন্টারনেট ছাড়া আমরা গতিহীন হয়ে পড়ব। ইন্টারনেট বর্তমানে মানুষের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি জিনিস। একই সাথে এটা মানুষের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে? কিভাবে এটা আপনার কাছে পৌছায়? ইন্টারনেটের মালিক কে?, ইন্টারনেটের জন্য কতই বা খরচ হয়?

অপটিকাল ফাইবার ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে?

ভারত বাংলাদেশ সহ পৃথিবীর সমস্ত দেশ ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত। আপনি হয়তো ভাবছেন ইন্টারনেট স্যাটেলাইটের সাহায্যে চলে। কিন্তু ৯৯ ভাগ ইন্টারনেট চলে অপটিকাল ফাইবার এর মাধ্যমে। মাত্র ১% চলে স্যাটেলাইট এর মাধ্যমে। আপনার মোবাইলে যে টাওয়ার থেকে নেটওয়ার্ক আসছে সেই টাওয়ার থেকে শুরু করে আপনি যে ওয়েবসাইট ব্রাউজ করছেন এই সাইটের সার্ভার পর্যন্ত অপটিকাল ফাইবার ক্যাবল বিছানো রয়েছে। বিষয়টি আরও সহজভাবে বোঝানোর চেষ্টা করছিঃ

কিভাবে এটা আপনার কাছে পৌছায়?

অপটিকাল ফাইবার ইন্টারনেট

ইন্টারনেটে তথ্য আপনার কাছে পৌঁছায় তিনটি স্তরের মাধ্যমে। স্তরগুলোকে Tier বলা হয়। এগুলো হলো Tier1, Tier2  এবং Tier3. Tier1 হলো সেই সমস্ত কম্পানি যারা নিজেদের টাকায় সারা পৃথিবীতে সমুদ্রের ভেতর দিয়ে কেবল বিছিয়ে রেখেছে। এক দেশ থেকে অন্য দেশে সমুদ্রের ভেতর দিয়ে কেবল বিছিয়ে দেশগুলোকে সংযুক্ত করেছে। এই সমস্ত ক্যাবলের এক প্রান্ত  ল্যান্ডিং পয়েন্ট থাকে। এবার সেখান থেকে দেশকে কয়েকটি রাজ্যের এবং রাজ্যকে কয়েকটি বিভাগে বিভক্ত করে আপনারা হাত পর্যন্ত ইন্টারনেট পৌঁছে যায়।

অপটিকাল ফাইবার কেবলগুলো চুলের মতো সরু। এর ডাটা ট্রান্সফার স্পিড খুবই উন্নত। ১০০ থেকে ১৫০ gbps. যে কোম্পানিগুলোর সমুদ্রের ক্যাবল বিছিয়েছে তাদেরকে বলা হয tier1 কম্পানি। ভারতে এমন কম্পানি হল “টাটা কমিউনিকেশন” এবং বাংলাদেশে “বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড. টাটা কমিউনিকেশন ৭০০০০০ km ফাইবার কেবল সমুদ্রে বিছিয়ে রেখেছে। https://www.submarinecablemap.com/ এ দেখতে পাবেন পৃথিবীতে কত কিমি কেবল বিছানো রয়েছে।

বাংলাদেশের ক্ষেত্রে banglalink, রবি এই সমস্ত কোম্পানিগুলো Tier1  থেকে কানেকশন নেয় এবং প্রতি GB হিসেবে একটি নির্দিষ্ট পরিমান টাকা Tier1 কম্পানিকে দেয়। এই সমস্ত কোম্পানিকে বলা হয় Tier2 কম্পানি। এছাড়াও একদম লোকালে কিছু internet service provider রয়েছে। Freeland, bdcom, এরা হল Tier3  কম্পানি.

ইন্টারনেটের মালিক কে?

ইন্টারনেটের কোন মালিক নেই। বিভিন্ন প্রাইভেট কোম্পানিগুলোর নিজেদের টাকায় অপটিকাল ফাইবার সমুদ্রে বিছায়।

ইন্টারনেটের জন্য কত খরচ হয়?

সত্যিকার অর্থে ইন্টারনেট ফ্রি। অর্থ লাগছে কেবল এবং এর মেইনটেনেন্স এর জন্য।

অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা

অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা করার চিন্তা করছেন, ? অনেক রকম ব্যবসা আপনার মাথায় আসলেও বুঝে উঠতে পারছেন না কিভাবে শুরু করবেন, কোনটা দিয়ে শুরু করবেন?  এর জন্য আপনাকে এর উপর আরো আনেক পড়ালেখা করতে হবে। শুধু বইয়ের পড়া না, বাস্তব অভিজ্ঞ কারো অভিজ্ঞতা পড়তে হবে। আত্মীয় সজনরা যদি কেউ বড় উদ্দৌক্তা থেকে থাকে তবে তাদের কাছে যেতে পারেন তবে কাছের মানুষরা এসব ব্যাপারে তেমন একটা সাহায্য করেনা। ঘরে বসে না থেকে বেড়িয়ে পড়ুন অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসার সন্ধানে। কথা বলুন আপনার আশেপাশের মানুষের সাথে, হতাশ হবেন না, অনেকেই ফিরিয়ে দিলেও কেউ না কেউ ঠিকই এগিয়ে আসবে। অনেক অনেক নতুন নতুন আইডিয়া পেয়ে যাবেন। আমাদের দেশে এলাকা ভিত্তিক একেক যায়গায় একেক রকম ব্যবসা। খরচও তেমনি ভিন্ন ভিন্ন রকম। সবকিছু বিবেচনা করে বাজেট তৈরি করুরুন।কয়েকজন অভিজ্ঞ মানুষের পরামর্শ নিতে পারেন।

অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা

অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা

অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা

আপনার সার্মথ্যরে মধ্যে পছন্দরে আনুযাই খুজে বের করুন অল্প পুজিতে লাভজনক ব্যবসা। আপনার আগ্রহকে গুরুত্ব দিন, কেননা আগ্রহ না থাকলে কখনই আপনি সফল হবেন না।  লক্ষ্য স্থরি করুন, আশা বড় করুন। বিনিয়োগের জন্য প্রস্তুতি নিন।মনে রাখবেন যেকোন ব্যবসা মানে মানে কোন না কোন সেবা, শুধু টাকাই লক্ষ্য হতে পারেনা। শুরু করার আগে জানুন, যত পারেন জানতে থাকুন। শুধু জেনে বসে থাকলেই হবে না। কাজে নামতে হবে।  জানুন উৎপাদনরে প্রক্রযি়া এবং পণ্যরে বাজারজাতকরণ সম্পর্কে।  র্আথকি সংকটে বসে থাকা আর নয়।

কয়েকটি ব্যবসার ধারণা নিচে দেয়া হলঃ

১) এপার্টমেন্ট ভবনের গার্বেজ কালেকশন

২) বাসাইয় বাসাইয় পাস্তুরিত দুধ সরবরাহ

৩) ট্যুরিজম অনলাইন

৪) ওয়েব হোস্টিং এর ব্যবসা

৫) কম্যুনিটি সার্ভিস

৬) ডেকেয়ার সেন্টার প্রতিষ্ঠা এবং পরিচালনা

৭) গিফট আইটেম

৮) ইন্টেরিয়র ডিজাইন (এন্ড কন্সট্রাকশন)

৯) নার্সারী (পুরানো আইডিয়া, কিন্তু স্মার্ট)

১০) ফোন, ফ্যাক্স, ফটোকপি আর কম্পিউটার কম্পোজ

১১) ওয়েব সাইট নির্মান

১২) ই কর্মাসা বা অনলাইনে বেচা কেনার ব্যবসা

এছাড়াও আছে শত শত ব্যবসার আইডিয়া। দেখে আস্তে পারেনঃ বাংলাদেশ সরকারের এই বিশেষ সাইটটি তথ্য আপা

সরকারি প্রশিক্ষণ নিন : বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন, বিসিকের প্রধান কার্যালয় মতিঝিলে তবে প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটটি উত্তরায়। প্রশিক্ষণ নিয়ে দক্ষতা বাড়ানো ও সহজে ব্যাংক থেকে ঋণ পাওয়া যায়।

** ঘুরে দেখতে পারেন ফ্রি ইকর্মাস নিয়ে আমাদের বিশেষ সুযোগ ঃ

ফ্রি ইকর্মাস: অনলাইনে ব্যবসা কভিাবে শুরু করবনে

 

নতুন সব তথ্য পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে ।

Fashion BD new Bangladeshi dress collection

Fashion BD or new Bangladeshi dress collection are now available in our popular eCommerce sites. anyone can buy from home now. But finding trusted seller is difficult. Now a days in our country fraud seller in different eCommerce sites are found and they are providing low quality product than your order. So be careful in online purchase. Never wast your valuable money. Always buy from trusted seller or website. Our big eCommerce sites are not selling product directly. Here there are so many seller from different place  are selling products. So first find your real seller or vendor or merchant  and judge their reputation before buying.

Fashion BD Bangladeshi dress collection

Fashion BD Bangladeshi dress collection

Fashion BD

We have exclusive dress likings. Shari is the most beloved and traditional clothing of our girls and many girls wear salwar and kameez. In village or sub town, women most of the time wearing modern dress. On the other hand our boys customarily wear Panjabi on holy and national occasions. By and large men wear lungi as casual dress particularly in rural areas of our country and shirt-pant or uniforms on official occasions. Our lassies and females also have an altered liking to which types of Sharee or any other popular dess like Salwar kameez they would like to wear.

New Bangladeshi dress collection

Shari of different colors and patterns is the most common dress for Bangladeshi women. Salowar Kamij is also very popular, especially among the teen girls. Some girls in urban areas also wear pants, skirts and tops.

 

Become a Seller

If you are a seller or vendor or merchant then you can sell your any product for free at shoppingbooking.com . Here there is a great offer for new eCommerce entrepreneur for learning eCommerce without big invest.  shoppingbooking.com  is giving you a eCommerce platform with variety of modern options.  you can change your life with eCommerce sector.

 

Form more information Please Like Us on Facebook. 

Mobile watch price in Bangladesh review

Mobile watch price in Bangladesh is so much variable brand to brand. It may be from 500 taka to 30000 taka. But what is Mobile watch or smart watch? It is a mobile device in a watch model. You can use it as a phone if you wish. This type of product is made up of of a platform, including the minicomputer and the display, attached to a bracelet. You can do many task like as calculations, digital time telling, interpretations, and game-playing etc. So effectively Mobile watch is a wearable stylist computers or mobile device.

mobile watch price in Bangladesh

Mobile watch price in Bangladesh

Mobile watch price in Bangladesh:

Price differ for brand to brand like
  • Xiaomi Mi Band 2 ৳1,999
  • Xiaomi Amazfit BIP (Global Converted Version) ৳6,499
  • Fitbit Flex 2 Fitness Tracker ৳7,499
  • Fitbit Alta Fitness Tracker ৳12,499
  • Fitbit Charge 2 Fitness Tracker ৳15,499
  • Fitbit Surge Fitness Tracker ৳19,999
  • Fitbit Blaze Fitness Tracker ৳23,499
  • Space Gray & Black-swatch Space Gray & Black-swatch
  • Apple Watch Series 3 42mm GPS (MQL12ZP/A) ৳39,900
  • Xiaomi Amazfit Arc-Black ৳4,649
  • Xiaomi Amazfit Smartwatch (Global Version) Xiaomi Amazfit Smartwatch (Global Version)
  • Xiaomi Amazfit Smartwatch (Global Version) ৳10,999
  • Huawei Watch 2 – Carbon Black – Plastic ৳21,669
  • GraySamsung Gear S3 Frontier Smart Watch- Space Gray ৳25,999

those information are collected from different popular eCommerce sites of our country. if you are looking for low Mobile watch price in Bangladesh than youcan visit those sites. you will find within 500 taka.

if you are a seller then you can sell your any product for free at shoppingbooking.com  . Here there is a great offer for new eCommerce entrepreneur for learning eCommerce without big invest.  shoppingbooking.com  is giving you a eCommerce platform with variety of modern options.  you can change your life with eCommerce sector.

mobile watch price in Bangladesh, smartwatch price in Bangladesh, android watch price in Bangladesh, Samsung smartwatch price in Bangladesh, online shopping Bangladesh compare and review. those are common search on google more than 10000000 times from Bangladesh. so you can imagine the demand of product now.

 

Form more information Please Like Us on Facebook. 

ব্যবসা নয়, ই-কমার্স হল একটি মাধ্যম যায় মাধ্যমে অনলাইনে ব্যবসা করা হয়

ই-কমার্স কোন ব্যবসা নয়, ই-কমার্স হল একটি মাধ্যম যায় মাধ্যমে অনলাইনে ব্যবসা করা হয়। আমাদের বাংলাদেশে ই-কমার্সের ব্যবসা শুরু হয়েছে প্রায় ১৫ বছর আগে। যদিও সেটা তখন বিশাল আকারে শুরু হয়নি বা বড় ধরনের কোন বুম আমরা দেখতে পাই নি। কিন্তু এখন ফেসবুকের কল্যাণে বাংলাদেশ অনলাইন বা ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে। এই কমার্সের সম্ভবনা এখন ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়েছে। ফেসবুক বাংলাদেশের এই ব্যবসার বৃদ্ধির প্রতি বিশেষ ভূমিকা পালন করছে।

আমাদের উদ্যোক্তাদের কি কি বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করতে হবে

  • কিছু টেকনিক্যাল জ্ঞান লাগবে
  • ব্যবসায়িক জ্ঞান লাগবে
  • কিভাবে মার্কেটিং করবেন সেই জ্ঞানটি লাগবে
  • মার্কেটিং এবং ব্যবসা একত্রিত করে কিভাবে শুরু করবেন সেই জ্ঞানটি লাগবে.

এটি একজনের পক্ষে শুরু করা সম্ভব, কিন্তু একজনের পক্ষে ভাল ভাবে করা একটু কষ্টকর।

ব্যবসা

ই-কমার্স ব্যবসা নিয়ে সম্ভাবনা

আমাদের বাইরের দেশগুলোর দিকে যদি আমরা তাকাই সেখানে যে প্রযুক্তি  ব্যবহার করা হয় তা আমাদের দেশে আসে কিছুদিন পর। যেহেতু বাইরে এখন বেশ জনপ্রিয় তো আমাদের দেশে সেই জনপ্রিয়তার হাওয়া একটু দেরিতে হলেও লেগেছে। এই পরিবর্তনটি বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিশেষ ভূমিকা রাখে ।  এই সুযোগ আমাদের যে বেকার ও যুবসমাজ রয়েছে তাদের জন্য কাজে লাগাতে পারি। এজন্য আমাদেরকে ই-কমার্স নিয়ে একটু স্টাডি করতে হবে.

আপনার একটি সম্পূর্ণ ব্যবসায়িক পরিকল্পনা থাকতে হবে। আপনি কিভাবে শুরু করবেন, আপনার মূলধন কত হবে, কিভাবে মার্কেটিং করবেন সেগুলোতে ক্যালকুলেশন করতে হবে।

ব্যবসার জন্য কি কি বিষয়ের প্রতি নজর দিতে হবে

  • ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভলপমেন্ট থাকতে হবে।
  • ওয়েবসাইটের নাম কি হবে।
  • এটা হোস্টিং কোথায় হবে।
  • নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে বিষয়গুলোতে সাবধান থাকতে হবে।
  • যে ফেসবুকে পেজ থাকবে তার সঙ্গে মিল থাকতে হবে।
  • ক্রেতাদের কাছে নিত্যনতুন পণ্য দিতে হবে।
  • কনটেন্ট লেখার ক্ষেত্রে সতর্ক হতে হবে এবং বিস্তারিত লিখতে হবে।
  • সুন্দর ছবির ব্যবহার করতে হবে।
  • ফেসবুক মার্কেটিং এর জায়গাটিতে দক্ষ হতে হবে।
  • ভালো একটি পেমেন্ট সিস্টেম নির্বাচন করতে হবে।
  • সঠিক সময়ে ডেলিভারি দিতে হবে।

এই বিষয়ে প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে,  অনেক সমস্যা রয়েছে. এখানে অনেক হাতছানি রয়েছে. আপনাকে সাঠিক বিজনেস প্ল্যান নির্বাচন করতে হবে ই-কমার্স ব্যবসার জন্য। সুতরাং বাজার পর্যালোচনা করেই এই ব্যবসার সুচনা করবেন।

 

 

ফ্রি ইকর্মাস: অনলাইনে ব্যবসা কভিাবে শুরু করবনে

ফ্রি ইকর্মাস অনলাইনে ব্যবসা

ফ্রি ইকর্মাস অনলাইনে ব্যবসা

ইন্টারনেট আর প্রযুক্তির অগ্রগতির সাথে সাথে ইকমার্স এরমত অনলাইন ব্যবসাও এগিয়ে যাচ্ছে। বাজার এখন হাতের মুঠোফোনে। এক ক্লিক এ পন্য আপলোড দিন আর আন্যদিকে এক ক্লিকে অর্ডার করুন। কুরিয়ার সার্ভিস এসে পন্য নিয়ে কাস্টমারের হাতে পৌছে দিয়ে টাকা নিয়ে আপনার হাতে দিয়ে দিল। একই বলে অনলাইনে ব্যবসা, ঘরে বসে সব কাজ। এমকি নিজের কোন পন্য না থাকলেও করা যায়। স্থানিয় উৎপাদক বা পাইকারি বিক্রেতাদের সাথে যোগাযোগ রাখবেন, সাইটে পন্য আপলোড দিয়ে রাখুন, অর্ডার পেলে তারপর পন্য নিয়ে ডেলিভারি দিন। কি সহজ, পুজি ছাড়াই ব্যবসা, তাও আবার ঘরে বসে। হাজার হাজার লোক এই ইকমার্স ব্যবসা শুরু করছেন। অনেকের ওয়েবসাইটও নেই, শুধু ফেসবুক দিয়েই কাজ করছেন। কিছু কিছু লোক সফলও হচ্ছেন। কিন্তু বাস্তবতা কিছুটা ভিন্ন।

ইকর্মাস: অনলাইনে ব্যবসার বাস্তবতাঃ

আসলে ইকমার্স যত সহজ মনে হয় অত সহজ না। এত সহজ হলে মানুষ কোটি টাকা বিনিয়োগ করে বাজারে নামত না। ঘরে বসেই সব করত। ইকমার্সও এখন কোটি কোটি টাকার ব্যবসা। বাংলাদেশেই এখন ইকমার্সে কোটি টাকার বিনিয়োগ হচ্ছে। আন্তর্জাতিক কোম্পানিও এদেশে বিনিয়োগ করছে।

তাই বলে যাদের অল্প পুজি তারা আশা হারাবেন না, এ দেশে যেমন বড় বড় গার্মেন্টস শিল্প আছে তেমনিভাবে ছোট ছোট টেইলর শপও আছে। তারাও অনেকেই বড় পজিশনে যাবে একদিন। ঠিক তেমনিভাবে যারা এখনই নিজের সাধ্যের মধ্যে ইকমার্স ব্যবসা শুরু করবেন তাদের একটা বড় অংশ আগামীতে অনেক বড় হবে। এখন বাংলাদেশে প্রায় দুই কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী এর খুব ছোট একটা অংশ নিয়ে কাজ করতে পারলেও সেটা অনেক বড় বেপার। শুরু থেকে শুরু করার জন্য শপিংবুকিং ডটকম দিচ্ছে বিশেষ সুযোগ। এখানে একটি ইকমার্স ব্যবসার প্রাথমিক সবকিছু পাবেন ফ্রি। তাই দেরি না করে আজই শপিংবুকিং ডটকম এ সাইন আপ করে একজন অনলাইন উদ্যোক্তা হয়ে যান। শুধু শুরু করুন দেখবেন সফলতা আপনার জন্য।

 

কিভাবে পাবেন?

১। প্রথমে shoppingbooking.com এ ভিজিট করবেন।
২। facebook or google দিয়ে Login করুন।
৩। উপরে ডানপাশে আপনার নামে ক্লিক করে My Account এ প্রবেশ করে Become A Vendor এ ক্লিক করুন।
৪। পছন্দমত আপনার ব্রান্ড/দোকান/সেবা এর নাম দিয়ে রেজিস্ট্রেশন শেষ করুন।
৫। উপরে ডানপাশে Vendor Dashboard এ ক্লিক করে আপনার দোকান এর Admin অপশনে যান।

 

নতুন সব তথ্য পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে ।

ফ্রি ই-কমার্স সাইট দিয়ে শুরু করুন অনলাইন বিজনেস

ফ্রি ই-কমার্স সাইট । ShoppingBooking.com

ফ্রি ই-কমার্স সাইট । ShoppingBooking.com

আপনি কি ই-কমার্স বা অনলাইন বিজনেস এর কথা ভাসবছেন? শুধু ফেসবুক এর মাধ্যমে ই-কমার্স ব্যবসা করছেন? সফলতা পাচ্ছেন না? নিজের ওয়েবসাইট নাই? থাকলেও তেমন সুবিধা হচ্ছে না? এই সব কিছুর একটাই সসমাধান shoppingbooking.com কিন্তু কিভাবে?

হ্যা, shoppingbooking.com আপনাকে দিচ্ছে একটি সম্পূর্ন অনলাইন বিজনেস এর ওয়েবসাইট একদম ফ্রি। এখানে শুধু পন্য বিক্রয় নয় আপনি আপনার সময় বা সেবা যেমন: বিউটি পার্লার, ডাক্তার, উকিল ইত্যাদি বুকিং দেয়ার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন ঝামেলামুক্ত ডিজিটাল উপায়ে।

  • এখানে আমরা,
    ১। আপনার পন্য আমি বিক্রি করতে সাহায্য করব
    ২। আপনার প্রডাক্ট আপনার ব্রান্ড আপনার নামেই থাকবে।
    ৩। আপনিই সরাসরি টাকা বুঝে নিবেন।

কিভাবে পাবেন?

১। প্রথমে shoppingbooking.com এ ভিজিট করবেন।
২। facebook or google দিয়ে Login করুন অথবা উপরে ডানপাশে Sign Up করুন।
৩। উপরে ডানপাশে আপনার নামে ক্লিক করে My Account এ প্রবেশ করে Become A Vendor এ ক্লিক করুন।
৪। পছন্দমত আপনার ব্রান্ড/দোকান/সেবা এর নাম দিয়ে রেজিস্ট্রেশন শেষ করুন।
৫। উপরে ডানপাশে Vendor Dashboard এ ক্লিক করে আপনার দোকান এর Admin অপশনে যান।

নিচের ছবিগুলোর পরে সংক্ষিপ্ত বর্ননা দেয়া হল

online shopping bd

 

নিচের ছবির সাথে মিলিয়ে আপনার পণ্য যোগ করুন

১। ভেন্ডর বা সেলার হবার পর Subscription এ যান এবং একটি প্যাকেজ অ্যাক্টিভ করুন।

online shopping bd

 

২। এখন আপনি পণ্য যোগ করতে পারবেন। Product পেজ এ গিয়ে Add new Product ক্লিক করুন।

 

online shopping bd

 

 ৩। এবার ১,২,৩,৪,৫,৬,৭,৮ ধাপগুলি সহজে পূরণ করুন।

 

online shopping bd

 

৪। উপরের ৪ নং ধাপে এইভাবে Set featured image যোগ করুন।

 

online shopping bd

 

এভাবে খুব সহজে সকল পণ্য যোগ করুন। পরে edit option থেকে ভালভাবে পণ্যের পরিবর্তন করতে পারবেন।

ফ্রি ই-কমার্স সাইটে থাকবে:

ক) Dashboard: আপনার দোকান এর বেচা-বিক্রি, লাভ-লস, নতুন ঘোষণাসহ একনজরে অনেককিছু।
খ) Products: এখানে আপনার সকল পন্য বা সেবার লিস্ট, নতুন পন্য যোগ, বিয়োগ, পরিবর্তন ইত্যাদি।
গ) Order: গ্রাহকের বা কাস্টোমার এর অর্ডার, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর, ইমেল ইত্যাদি এখানে পাবেন।
ঘ) Report : রির্পোটে আপনি আপনার দোকান এর বেচা-বিক্রি, লাভ এর সাপ্তাহিক, মাসিক বা কোন সময়ের বিস্তারিত তথ্য পাবেন।
ঙ) Review : আপনার দোকান থেকে কেও কিছু কিনলে কেবলমাত্র সেই আপনাকে একটি সুন্দর কমেন্ট ও মার্ক করতে পারবে যা আন্য সবাই দেখতে পারবে।
চ) Support: আপনার ক্রেতা বা ভিজিটর কোন সমস্যায় আপনাকে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারবে এবং এর রেকর্ড থেকে যাবে দুজনেরই কাছে।
ছ) Booking: এখানে আপনার সময় বা সেবা যেমন: বিউটি পার্লার, হোটেল, ডাক্তার, উকিল ইত্যাদি বুকিং দেয়ার বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন ঝামেলামুক্ত ডিজিটাল উপায়ে।

আরো থাকছে ফ্রিঃ

ঞ) Subscription : এখানে আপনি ফ্রি অফারে মেম্বারশিপ পাবেন।

ট) Setting : আপনার দোকান আপনার মত করে সাযাতে পারবেন। গুগোল পজিশন ম্যাপ, তথ্য ভেরিফিকেশন, হোম ডেলিভারি, পেমেন্ট, ছুটি/বন্ধ, নোটিশ, SEO, সহ অনেক অপশন পাবেন।

ঠ) Vacation: আপনি যদি কিছু সময় এর জন্য অনলাইন এ না সময় দিতে পারেন বা দোকান অফ রাখতে চান তাহলে সহজেই তা করতে পারবেন।
ড) Discount / Offer: আপনি চাইলে বিভিন্ন সময়ে দারুন সব অপফার বা ছাড় দিতে পারবেন।
ঢ) Coupon: কুপন তৈরি করে বিশেষ ছাড় এর ব্যাবস্তা করতে পারবেন।
ণ) Home Delivery/ Shipping: আপনা পন্য ক্রেতার বাসায় পৌছে দেবার খরচ প্রডাক্ট এর সাথে হিসাব দেখাতে পারবেন। প্রতি জেলার জন্য আলাদা আলাদা সেট করতে পারবেন। পন্যের সংখ্যা ও পরিমান এর উপর খরচ কম বেশি করতে পারবেন।
ত) Store/Product Share: শুধুই আপনার পন্য বা দোকান ফেসবুক সহ যেকোন স্তানে সেয়ার করতে পারবেন। ইছে করলে প্রমোট করতে পারবেন।

এসব ছাড়াও আর অনেক সুভিধা পাবেন।

Home Delivery/ Shipping Cost Setting:

 

১। Enable Shipping: Enable shipping functionality এ টিক দিন তারপর ছবি দেখে বা আপনার ইচ্ছামত সেটিং সেট করুন।

 

Shipping Settings Bangladesh

Shipping Settings Bangladesh

 

২। Shipping Policy ও Refund Policy তে আপনার বিভিন্ন শর্ত, সুবিধা-অসুবিধা খোলামেলা ভাবে ক্রেতার কাছে তুলে ধরুন।

 

Shipping Settings Bangladesh

Shipping Settings Bangladesh

 

৩। কোথায় কত খরচ হবে তা এখানে সেট করুন। আপনার নিজ জেলা বা পার্শবর্তী এলাকয় ফ্রি ডেলিভারি দিতে পারেন Cost 00 দিয়ে।

 

Shipping Settings Bangladesh

Shipping Settings Bangladesh

 

ব্লগ লিখতে চাইলে:
৬। এবার shoppingbooking.com লোগোতে ক্লিক করে Home পেজ এ আসুন অথবা যেকোনো পেজ এর নিচের ডনদিকে Site Admin এ ক্লিক করে আপনার Admin পেজ এ প্রবেশ করুন।Posts > Add New > আপনার লেখা শুরু করুন।

নতুন সব তথ্য পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

ব্লগ লিখে আয় করুন

ব্লগ লিখে আয় করুন ঘরে বসে |ShoppingBooking.com

ব্লগ লিখে আয় করুন ঘরে বসে |ShoppingBooking.com

আমাদের ওয়েবসাইট  ShoppingBooking.com উন্নয়নে অবদান রাখার ইচ্ছা প্রকাশ করায় আপনাকে ধন্যবাদ। আপনি এখনই  ব্লগ লেখা শুরু করতে পারেন। ব্লগ লিখুন আয় করুন।  ৩০০+ শব্দে বাংলা বা ইংরেজিতে আপনার ইচ্ছেমত ব্লগ পোস্ট লিখতে হবে (Yoast SEO Approved)। কাজ না জানলে শিখিয়ে দেয়া হবে।

লেখার শর্তঃ

বিষয় : আপনার ইচ্ছেমত,
তবে তা যেন নতুন উদ্যোক্তা বা ব্যাবসাইদের, যাদের নিজের ওয়েবসাইট নেই বা চালাতে পারছেনা তাদের ই-কমার্স এর উপর আগ্রহি করে এই সাইটে ফ্রি ই-কমার্স ব্যবসা শুরু করান।

১. লেখার মধ্যে অবশ্যই এই সাইট এর লিংক থাকতে হবে।

২. লেখাটি অবশ্যই Yoast: All green light দেখাতে হবে।

৩. লেখটি অবশ্যই নকলমুক্ত এবং অপ্রকাশিত হতে হবে।  আপনার লেখা আপনার নামেই থাকবে। কাজ ভাল লাগলে শুধু লেখক নয় পার্টনার হিসাবে পেতে চাই।

 ব্লগ লিখুন আয় করুনঃ

৩টি শর্ত পুরন হলে ৫০ টাকা এবং পরে লেখাটি ১০০০ জন পড়লে আরো ৫০ টাকা করে পেতে থাকবেন এক বছর।
আমাদের বাজেট অল্প, তবে এই বাজেটে কাজ করতে চাইলে আপনার পছন্দমত উপায়ে পেমেন্ট দেবার চেস্টা করব।

কিভাবে লিখবেন:
প্রথমে shoppingbooking.com এ ভিজিট করবেন। তারপর facebook or google দিয়ে Sign in করুন। এখনও আপনি লিখতে পারবেন না।  লেখার জন্য ভেন্ডর বা সেলার বা বিক্রেতা হতে হবে। এবার ডানপাশে উপরে আপনার নামে ক্লিক করে My Account এ প্রবেশ করে Become A Vendor এ ক্লিক করুন।

এখন আপনি প্রস্তুত, পছন্দমত একটি দোকান এর নাম দিয়ে রেজিস্ট্রেশন শেষ করুন। এবার shoppingbooking.com লোগোতে ক্লিক করে Home পেজ এ আসুন অথবা যেকোনো পেজ এর নিচের ডনদিকে Site Admin এ ক্লিক করে আপনার Admin পেজ এ প্রবেশ করুন। Posts > Add New > আপনার লেখা শুরু করুন।

YOAST: All green light Tutorial

১। YOAST ইংলিশ টিউটোরিয়াল থেকে শিখুন এখানে
২। YOAST বাংলা টিউটোরিয়াল থেকে শিখুন এখানে

এই ভিডিওটি দেখার পর না বুজন।  গুগলে সার্স করুন, আনেক কিছুই আছে।কোনকিছু না বুঝলে সরাসরি যোগাযোগ করুন আমাদের সাথে।

বিদ্রঃ আপনি লেখা শুরু করার সাথে সাথে আপনার নিজেস্ব অনলাইন ব্যবসাও শুরু করতে পারেন ফ্রি।

অথবা আপনার পরিচিত কেউ শুরু করতে চাইলে তাকে হেল্প করতে পারেন। ওভিজ্ঞতা হয়ে গেলে নিজেই পরে সবকিছু করতে পারবে।

NOKIA 6 phone. This phone is a super stock.

NOKIA 6 phone. I will talk about this . first of all some people are really not aware of this specification. This is a 5.5 inch full HD display. this has 1820 by 1080 p display on this device. in addition it has 16 megapixel camera on the rear of the Nokia 6 and this has 1080 p video recording. 3 gigabytes of ram and also snapdragon 430 CPU.  It have 3000 milliamp power battery. It has Android 7.1 operating system.

Another specification is this thing weight about 169 grams. It’s not really a heaviest device also this his is not super like either. Keeping all those specification in mind they sound pretty good on paper. Especially considering you get the Nokia 6 is like $200 and $250 on Amazon.

Design experience 

I don’t want to talk about the design experience here. Nokia 6 gets all kind of notification. Do keep in mind on this price there is plenty of options. In terms of design what I like about that it is extremely squareish. As a result It look pretty unique here. You have large body like Smartphone. Yet one thing I like about the design that camera have a thump on the back. But it could get scratched on the table. So i don’t think this is going to be extremely durable when is come to see chance of the edges. Keep that in mind if you are picking up Nokia 6.

Display

Let’s talk about more now about the display. first of all It have 1920 by 1080 full HD panel here and It performs very nicely. As a result you can easily read the text and Its display is pretty incredible. in addition you can differentiate between low viewing angles and Watching video will be a joy here.

Performance

The performance here will go to tick a hit. Scroll is not very nice. Gaming is ok under Nokia 6. Snapdragon 430 CPU have a recent update. If you care about the performance on the phone you might stay away from Nokia 6. But it is extremely nice to use, when come to the software. This phone is a super stock.

Battery life

The battery life is being scholar. If you want a great battery life Nokia 6 goanna give it to you. Less powerful CPU easily gives a great battery life.It usually gives 6 hours on screen time.

Storage

I have no issue with storage. It have 32 Gigabyte of storage.

Check the full review of Nokia 6 on this site

 

 

 

পেন ড্রাইভ দিয়ে সবচেয়ে সহজে উইন্ডোজ ইন্সটল করুন

আসসালামু আলাইকুম । আশা করি সবাই মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে ভাল আছেন।
 “ভাল থাকুন ও ভাল রাখুন আপনার পাশের মানুষটিকে-বাণী অনি আপু
টিউনার পেইজে এটি আমার ৫ম পোস্ট । কাজেই আমি এখনও নতুন । আশা করি ভুল ত্রুটি গুলো ইতিবাচক দৃষ্টিতে ধরিয়ে দিবেন । টিউনার পেইজে উইন্ডোজ ইন্সটল নিয়ে অনেক গুলো পোস্ট পড়েছি । আমিও আজ উইন্ডোজ ইন্সটল নিয়ে এই পোস্টটি করছি । আমরা অনেকে নেট বুক ব্যবহার করি । কিন্তু নেট বুকে ডিবিডি রুম না থাকায় নতুন করে উইন্ডোজ ইন্সটল করার সময় আমাদের পরতে হয় বিপাকে । আর যাতে এমন বিপাকে পরতে  না হয় সে জন্যই পেন ড্রাইভে কি করে উইন্ডোজ ইন্সটল করা যায় তাই আপনাদের দেখাব । এই প্রক্রিয়ায় উইন্ডোজ ইন্সটল করতে আপনার যা লাগবে তা হল

  • একটি উইন্ডোজ সিডি
  • একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার
  • একটি ৮গিগা বাইট পেন ড্রাইভ এবং
  • আমার দেওয়া এই দুটি সফটওয়্যার(DVD ISO Maker এবং Universal USB Installer 1.8.6.2)

প্রথমে ডেস্কটপ কম্পিউটারের ডিবিডি রুমে উইন্ডোজ সিডিটি প্রবেশ করান । এরপর DVD ISO Maker সফটওয়্যারটি Run করান । নিচের স্ক্রীন শর্টটি দেখুন
undefined
Next দিয়ে এগিয়ে যান এবং Save করুন । বেশ ISO ফ্যারমেটে তৈরি হয়ে গেল আপনার সফটওয়্যারটি । এখন তা আপনার পেন ড্রাইভে কপি করে সহজেই উইন্ডোজ ইন্সটল করতে পারেন । কিন্তু কথা হল  ISO ফ্যারমেটে তৈরি করা এই ফাইলটি পিসি থেকে আপনার পেন ড্রাইভে সরাসরি কপি হবে না । এজন্য আপনাকে ব্যবহার করতে হবে Universal-USB-Installer সফটওয়্যারটি । নিচের স্ক্রীন শর্টটি দেখুন
undefined
এখানে আপনি যে windows দিতে চান সেটি নির্বাচন করুন । আমি windows 7 দিতে চাই তাই সেটি নির্বাচন করেছি ।
নিচের আরো একটি স্ক্রীন শর্ট দেখুন 
undefined
এবার যে জায়গায় ISO ফাইলটি রেখে ছিলেন তা দেখিয়ে দিন এবং সব শেষে Create দিন ।
মাশাআল্লাহ আপনার ISO ফাইলটি আপনার পেন ড্রাইভে কপি হয়ে গেল ।
এখন থেকে কোন জামেলা ছাড়াই এই প্রক্রিয়ায় পেন ড্রাইভে  উইন্ডোজ ইন্সটল করুন ।
“আল্লাহপাক আমাদেরকে সকল অনৈলামিক সংস্কৃতি থেকে হেফাযত করুন “
avatar

পোষ্টটি লিখেছেন টিজে – অচিন পথিক

অচিন পথিক এর প্রোফাইল দেখুন

 

মোবাইলকে পরিণত করুন শিক্ষার অন্যতম মাধ্যম হিসাবে (পড়ালেখাকে আমি আপনাদের হাতের মুঠোয় এনে দিলাম , সংগ্রহের/ডাউনলোড করার দ্বায়িত্ব আপনাদের)

source: http://www.tunerpage.com/archives/65290

বর্তমান বিশ্বে যেসব নতুন আবিষ্কার অতি দ্রুত শহর-বন্দর ও গ্রাম-গঞ্জের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে পড়েছে তন্মধ্যে মোবাইল ফোন একটি উল্লেখযোগ্য আবিষ্কার। মোবাইল নেয় এমন তরুণ তরুণী হয়তো এখন আর দেশে খুজেঁ পাওয়াই কঠিন। সবার হাতে হাতে রয়েছে মোবাইল। …একটা সময় এমন ছিল যখন মোবাইল ফোন ছিল শুধুমাত্র যোগাযোগের মাধ্যম  অর্থাৎ মোবাইল ফোন ছিল মূলত ফোন করা বা এসএমএস এর জন্য । তারপর সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে এটি হয়ে ওঠে আমাদের জীবন যাপনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে মোবাইল ফোন যেন আমাদের সবচেয়ে কাছের বন্ধু। আর কেনই বা কাছের বন্ধু হবে না বলুন – মোবাইল ফোন যদি আমাদের ইন্টারনেট ব্যবহারের করে – মুহূর্তের মধ্যে যে কোন স্থানে প্রয়োজনীয় সব তথ্য সংগ্রহ করে দেয়, ও প্রিয়জনের সাথে ফেসবুক এর মত এপ্লিকেশন ব্যবহার করার সুযোগ দেয় বা বলে দেয় আজকের আবহাওয়া কেমন যাবে, বা আপনার শেয়ারের বর্তমান রেট কত যাচ্ছে কিংবা হুমায়ুন আহমেদের বই ডাউনলোড করে পড়ার সুযোগ দেয় । আর এ জন্য একে আমি বলি  “হাতের মুঠোয় ছোট্ট বিশ্ব” ।বর্তমান এই যুগে  আমাদের সার্বক্ষণিক ও একমাত্র সঙ্গী বা পারসোনাল ডিজিটাল এ্যসিস্টেন্স (পিডিএ) হচ্ছে মোবাইল । আর এর সহজ ব্যবহার, ইন্টারনেট সুবিধা ও সহজ বহনযোগ্যতার জন্য দিন দিন মোবাইল  বা স্মার্টফোনের  প্রতি মানুষের আকর্ষণ যেভাবে বাড়ছে…! তাতে বলা যায়, আমাদের  ডেক্সটপ ও ল্যাপটপের দিন শেষ …………!
আর তাই এই প্রিয় মোবাইল নামক বন্ধুটিকে আপনার শিক্ষা জীবনের অন্যতম বন্ধুতে রূপান্তরিত করতে আমি চেষ্টা করব…।এজন্য মোবাইল কে পরিণত করতে শিক্ষার অন্যতম মাধ্যম হিসাবে…।কারন সবসময় তো কম্পিউটার বগলদাবা করে ঘুরে বেড়ানো যায় না, তাই সব জায়গায় ই-বুক পড়াও যায় না। মনে করেন আপনি ট্রেনে করে সিলেট বা ঢাকা  যাচ্ছেন, এখন আপনি ই-বুক পড়ার মত কম্পিউটার পাবেন কই?এছাড়া দীর্ঘ কোনো লেখা কম্পিউটারে পড়তে বিরক্ত লাগে…তা ছাড়া কারেন্টও থাকেনা সব সময়।
সেটা কেবল সম্ভব হবে মোবাইল দিয়ে………যদি আমাদের প্রয়োজনীয় সকল বই ( বিশেষ করে বাংলা বই) পড়া যায়।এছাড়া এই মোবাইলের  ভেতর আস্ত আস্ত বই রেখে দিতে পারবেন। যারা বই পড়তে ভালোবাসে তারা যখন ফোন আসে না তখন মোবাইল খুলে বই পড়তে পারবেন।

আমার মনে হয় প্রায় সবাই এই ব্যাপারটা জানে… কিন্তু এর সঠিক ব্যবহার কেউ করে নাই…
যেসব কারণে আপনি মোবাইলে বই পড়েন নাইঃ
১)-কারন আমারা ইন্টারনেট থেকে যেই বই গুলো পাই সেগুলো ইংলিশ , বাংলা তে ইবুক এর সংখ্যা অতি নগণ্য ।
২)-অবশ্য এখন অনেক গুলো বাংলা ইবুক আস্তে আস্তে পাবলিশ হচ্ছে কিন্তু সমস্যা হল সেগুলো ইউনিকোড টেক্সট ফরম্যাটে নাà  স্ক্যান করা
৩)-অথবা বিজয়  টেক্সটে লেখা যা মোবাইল মোটেও পরা সম্ভব না।
৪)-আর অন্য যেগুলো  পড়া যায় সেগুলো আবার ডানে বামে করতে করতে বিরক্ত হয়ে আর পড়ার আগ্রহ থাকে না।

আর এই জন্য আমি মোবাইল ভার্শনে আনেক গুলো প্রয়োজনীয়  সব  বাংলা ই-বুক আপনাদের জন্য তৈরি করেছি …… যা দেখতে অবিকল বই-এর মতোই, কিন্তু কাগজের বদলে থকবে আপনার মোবাইল স্ক্রীন।
যেসব কারণে আপনি মোবাইলে এই বই গুলো পড়বেনঃ

ইউনিকোড বাংলা টেক্সটে……যা সব মোবাইল রিড়ারে দেখা যাবে,
আর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল এই বই গুলো  মোবাইল  স্ক্রীন সাইজে………!
তাই ডানে বামে করা লাগবে না…!
আর মেমোরি সাইজ ও কম তাই হ্যাং করবে না…।

অনেক আজাইরা কথা হল … এবার আসল কথায় আসি… যাদের মোবাইল দিয়ে পডালেখা করার ইচ্ছা আছে তারা:–
প্রথমে নিচের সফটওয়্যার গুলো মোবাইল এর ভার্শন আনুযায়ি ডাউনলোড করে নিন…ঃ-     

Note:যে সকল মোবাইল সেটে আগে থেকে অ্যাডোব (Adobe Reader) রিডার আছে তারা নতুন করে ইন্সটল করে ঝামেলা করার দরকার নাই তবে আপডেট করতে চাইলে তা অন্য কথা………

নোকিয়া স্যম্বিয়ান সিরিজ ৬০ ভার্সন ২ (s60v2) এর জন্য বই/ ই-বুক রিড়ার

s60v2.zip
Download link:
http://www.mediafire.com/?23qi8bsxoas5330

নোকিয়া স্যম্বিয়ান সিরিজ ৬০ ভার্সন 3 এবং ৫( s60v3 & s60v5) এর জন্য বই/ ই-বুক রিড়ার:-

 যদি আপনার সেট Certificate error দেখায় ,এই একটি সফটওয়্যার ইন্সটল করে হ্যাক করুন কোন জামেলা ছাড়া
=> easy hacking kit.zip ফাইল টি ওপেন করে how to hack.txt থেকে আপনার SYMBIAN DEVICE LIST
দেখে নিন ।
সফটওয়্যার টা মেমোরি কার্ডে ইন্সটল করা …
* 1. Binpda Security Manager
* 2. Installserver (সেটের ভার্সন আনুযায়ী-9.1 অথবা 9.2)
* 3. Capsoff driver (সেটের ভার্সন আনুযায়ী-9.1 অথবা 9.2)
এ ক্রস চিনহ থকবে আর বাকি সব ক্রস তুলে দিতে হবে
(ওই উপরের তিনটি অপশন শুধু সিলেক্ট থাকবে)
এরপর মেমোরি কাডে ইন্সটল করুণ
আপনার অ্যাপ্লিকেশান এ SecMan নামে একটি সফটওয়্যার ইন্সটল হবে …।
সফটওয়্যার টি ওপেন করুণ
যে লেখা আসুক না কেন ok প্রেস করুন । কিছুক্ষণ পর আপনার মোবাইল রিস্টাট নিবে ……।
এরপর আশা করি কাজ হবে…।।
কাজ না হলে আপনার সেট সম্ভবত ফ্ল্যাশ দেওয়া হয়েছে
Easy hacking kit.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?8sf7lf9u8lp7kxh

যদি আপনার মোবাইল হ্যাকিং কায্রক্রম  সর্ম্পূন হয় তাহলে নিচের ফোল্ডার থেকে Adobe 2.5 software ইন্সটল করুন
s60v3 & s60v5.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?jbu252x1w6xjy4l

আর আপনি যদি কোন ঝামিলা করতে না চান বা হ্যাকিং কাজ না করলে নিচের সাইন (Signed) সফটওয়্যার ইন্সটল করতে পারেন………
Pdf+Reader Standard_Nokia S60v5 & s60v3 Signed .sis
Download link: http://www.mediafire.com/?m7530b80bcx5z8u

অ্যাডোব(Adobe e-book) রিড়ারে বই গুলো যেভাবে দেখবেন


পিডিএফ (PDF)  পড়ার জন্য zoom–> সিলেক্ট করে Fit width অপশন এ ক্লিক করুন …
তারপর আবার অপশন ক্লিক করে Accept ক্লিক করুন…
    

Pdf+ রিড়ারে বই গুলো যেভাবে দেখবেন

             

undefined

জাভা (s40v1,2,3) সেটের জন্য

(কিছু কিছু বাংলা কিবোর্ডের সেট গুলোতে কাজ করে, বাকী গুলোর কথা বলতে পারি না)
For java.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?2rdrhg28137w3tn

আর যদি মোবাইল এ ইন্টারনেট থাকে তাহলে অনলাইনেও পড়তে পারবেন

ডকুমেন্ট(ওয়ার্ড বা পিডিএফ) ভিউয়ারঃ http://view.samurajdata.se/
অনলাইন  সব ধরনের ডকুমেন্ট কনভার্টারঃ http://www.online-convert.com/

পিডিএফ আনলকঃ http://www.ensode.net/pdf-crack.jsf

আপনার মোবাইল এ কম্পিউটার এর মত ফাইল ব্রাউজার ও জিপ ফাইল খোলার জন্য নিচের ফাইল গুলো ডাউনলোড করুন

স্যম্বিয়ান মোবাইল এর জন্যঃ- X-Plore.1.52-Signed (s60v3 & s60v5).sisx
Download link: http://www.mediafire.com/?zsccesoijg8nm72
জাভা বা সিরিজ 40মোবাইল এর জন্যঃ- Java File browser BlueFTP.jar(এটা দিয়ে অন্য যে কোন মোবাইল থেকে ব্লথুথ দিয়ে ফাইল কপি – পেস্ট করা যায়)
Download link:http://www.mediafire.com/?af2hkffu32jz3rr

এখন নিচের লিঙ্ক থেকে আপনার প্রয়োজনীয় সব বই ডাউনলোড করে পড়া শুরু করে দিনঃ-

যাচাই করার জন্য নিচের যে কোন একটি বই ডাউনলোড করুন
Let’s Learn English Languages for Mobile.pdf (দ্রুত ইংলিশ কথা বলা শিখার জন্য)
Download link: http://www.mediafire.com/?hlvucybp7pjyy28
funny Knowledge.pdf
Download link: http://www.mediafire.com/?x4815bq3yg34d4c
Medical Science.pdf
Download link: http://www.mediafire.com/?8kh3y89o6avocv9
Science.pdf
Download link: http://www.mediafire.com/?o4dooy7ar6ew6rr
Xclusive General Knowledge Bangladesh.pdf
Download link: http://www.mediafire.com/?276l3rymei8mo48
Brief Knowledge Of The World(G.K.International).pdf
Download link: http://www.mediafire.com/?zfufma14aagif1a
Biology.pdf
Download link: http://www.mediafire.com/?a511ammmt6uacwl

ভাল লাগলে নিচের এই ৫০টি মোবাইল ভার্শন বইগুলো (যা জিপ করা আছে) ডাউনলোড করুনঃ

Bangla Literature.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?k5yky5kazy0jifk
Bangla literature_with category.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?e56fbsplnen0o6o
Bangladesh study.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?ub0x398rs74qdb0
Bangladesh.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?u4hn29t42xms12y
chemistry.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?fpc0joxrsa37r1e
English Xclusive.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?aj98vivg49p8ilh
Science.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?8sqo4zfd3j1rxt1
International Affairs.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?buwdp310o1uefqv
Xclusive.zip
Download link: http://www.mediafire.com/?i1ewh8c871w3y3o

এই বই গুলো আপনাদের ডিজিটাল জীবন কে আরও সহজ করে দিবে আশা করি।আমার পরিশ্রম আপনাদের বিন্দুমাত্র কাজে লাগলেও আমি স্বার্থক।

এই রকম বাংলা বই আরও পেতে হলে আমার বাকী টিউন গুলো পডুন:

* এসএসসি,এইচএইচসি ও GRE শিক্ষার্থীদের জন্য প্রয়োজনীয় সব সূত্র ও টেকনিক এর বাংল বই
* সহজে ইংলিশ শিখার জন্য কিছু বাংলা বই( সবার কাজে লাগতে পারে)
* ইংরেজি গ্রামার(বিসিএস ,বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ও যে কোন চাকরির পরীক্ষা) শিখার জন্য কিছু বাংলা ই-বুক(আশা করি সবার কাজে লাগবে)
* প্রয়োজনীয় সব ওয়েব সাইট লিঙ্কের বাংলা বই ( যে কোন একটা ডাউনলোড করে দেখুন…)
* “সাধারণ জ্ঞান -বাংলাদেশ’Bangladesh Affairs ” উপর কিছু বাংলা বই(Bangla e-Books), যা সকলের কাজে লাগতে পারে (বিসিএস ,বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ও যে কোন পরীক্ষার জন্য) …
* “সাধারণ জ্ঞান- আন্তর্জাতিক International Affairs” উপর কিছু বাংলা বই(Bangla e-Books), যা যে কোন প্রতিযোগীতা মূলক পরীক্ষার জন্য ১০০% কাজে লাগবে !
* বাংলা বই(বাংলা কবি ও সাহিত্যিকের প্রয়োজনীয় সব বিষয় )বিসিএস ,বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ও যে কোন চাকরির পরীক্ষার জন্য
* বাংলা ই-বই (বাংলা ব্যাকরণ )বিসিএস ,বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ও যে কোন চাকরির পরীক্ষার জন্য
কিছু প্রয়োজনীয় বাংলা ই-বই (সবার ভাল লাগবে আশা করি)
* আমার দেখা সবচেয়ে জনপ্রিয় বাংলা প্রয়োজনীয় বই গুলো.

avatar

পোষ্টটি লিখেছেন টিজে – জিরো গ্রাভিটি

Loadingপ্রিয় লিস্টে যুক্ত করুন

তানবীর আহম্মদ এই ব্লগে 15 টি পোষ্ট লিখেছেন .
আমরা বেচেথাকি শুধুমাত্র বিভিন্ন লক্ষ পুরোণের জন্য। একটা লক্ষ পুরণ হয়েগেলে আর একট লক্ষ এসে সামনে হাজির হয়। যখন ভাবতে বসি তখন খুজে পাই সব লক্ষ পুরণ ই অলাভজনক। আমি যত কষ্ট করে আজকের এই অবস্থায় এসেছি তা অনেক পাওয়া কিন্তু এরজন্য আমাকে যা যা ছাড়তে হয়েছে তার মূল্য এর চেয়ে অনেক বেশী। সে জন্য মনেহয় বেচে থাকাটা শুধুমাত্র মরে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করা। লক্ষ অর্জণ মাঝখানে শুধু শুধু বশে না থেকে কিছু করা। বসে বসে মরার অপেক্ষা তো করা যায় না তাই।

উইন্ডোজে ইউজার বা administrator লগইন পাসওয়ার্ড থাকা সত্তেও প্রবেশ করুন অন্যের কম্পিউটার

আমরা সবাই হ্যাকিং করতে পচ্ছন্দ করি ,তাও যদি হয় আবার উইন্ডোজ লগইন পাসওয়ার্ড তাহলে তো কথাই নেই । ইন্টারনেটে এরকম অনেক সফটওয়্যার আছে যার মাধ্যমে আমরা অনেকেই পেনড্রাইভ অথবা সিডি দিয়ে অনায়সে উইন্ডোজ লগইন পাসওয়ার্ড ভেঙ্গে উইন্ডোজ এ প্রবেস করতে পারি । কিন্তু এক্ষেত্রে সমস্যা হলো ব্যাবহারকারি সহজেই বুঝতে পারে যে তার কম্পিউটার হ্যাক করা হয়েছে কারন পাসওয়ার্ড ভেঙ্গে ফেলার ফলে উইন্ডোজে কোন পাসওয়ার্ড থাকে না । তবে আজকে আমরা এমন এক পদ্ধতি দেখব যার মাধ্যমে উইন্ডোজ পাসওয়ার্ড না ভেঙ্গেই উইন্ডোজে প্রবেস করবো ।

পূর্বপ্রস্তুতিঃ

# আপনি যে কম্পিউটার হ্যাক করতে চান সে কম্পিউটারের BIOS এ অবশ্যই পেনড্রাইভ দিয়ে বুট করার অপশন থাকতে হবে ( আমার দেখা মতে বাংলাদেশে বহুল ব্যাবহৃত মাদারবোর্ড হলো G31 chipset মাদারবোর্ড যা পেনড্রাইভ দিয়ে বুট করা সাপোর্ট করে । এছাড়া G31 chipset এর পরে যে সকল মাদারবোর্ড আসছে বা আসতেছে তা সবগুলোতেই পেনড্রাইভ দিয়ে বুট করার অপশন আছে ) ।
# আপনি যে কম্পিউটার হ্যাক করতে চান তা অবশ্যই এক্সপি ব্যাবহারকারি হতে হবে (পরবর্তীতে উইন্ডোজ ৭ এর পদ্ধতি দেখাব ) ।
# একটি পেনড্রাইভ ( কম্পিউটার আছে কিন্তু পেনড্রাইভ নাই এরকম পাবলিক গুগল দিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ আছে ) ।

# এবার পেনড্রাইভ ইউএসবি পোর্ট এ লাগাই এবং ফরম্যাট করি । ফরম্যাট করার সময় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে file system অবশ্যই fat32 থাকতে হবে ।


# এবার এখান থেকে unetbootin নামক সফটওয়্যারটি এবং এখান থেকে .img ফাইলটি ডাউনলোড করে নেই ।
#এবার unetbootin সফটওয়্যারটি ওপেন করি এবং চিত্র অনুসারে কাজ করি …………………




# এবার Exit বাটন এ ক্লিক করুন , আপনার পেনড্রাইভ প্রস্তুত হয়ে গেছে হ্যাকিং এর জন্য ।

এবার চলুন মিসনে…………………

# যার কম্পিউটার হ্যাকিং করতে চাচ্ছেন তার কম্পিউটার ওপেন করুন এবং BIOS এ প্রবেশ করুন ( বেশীরভাগ কম্পিউটার এ F12 ,F8 ,DEL বাটন এর মাধ্যমে BIOS এ প্রবেশ করা যায় ) ।
# এবার first boot device বা boot priority ইউএসবি সিলেক্ট করে দেই । চিত্রের মাধ্যমে দেখানো হলো
# boot এ সিলেক্ট করুন



# আবার award bios এর ক্ষেত্রে অন্যরকম পদ্ধতি , চিত্রে তা দেখানো হল

# এবার advance bios feature এ ক্লিক করুন এবং first boot device usb hdd সিলেক্ট করে দিন । আধুনিক bios গুলোতে সরাসরি পেনড্রাইভ এর নাম এসে পরে ।
# এবার কীবোর্ড এর f10 বাটন চাপুন অর্থাৎ Save & Exit Setup করুন ।
# এবার দেখবেন কম্পিউটার আবার নতুন করে চালু হয়েছে এবং নিচের চিত্রের মতন একটি স্ক্রীন আসবে ………

# এবার একবার কীবোর্ড এর Enter বাটন চাপুন এবং দেখুন মজা …………………………… উইন্ডোজ আপনার কাছে লগইন পাসওয়ার্ড চাবেনা ।
এবার যখন মূল ব্যাবহারকারি কম্পিউটার এ প্রবেশ করবে তখন তার পাসওয়ার্ড দিয়েই প্রবেশ করতে হবে এক্ষেত্রে যদি কোন প্রত্যক্ষদর্শী আপনার আকাম না
দেখে তাহলে সে কখনোই জানতে পারবেনা যে আপনি তার কম্পিউটারে প্রবেশ করেছেন ।

Bengali Font Configure at Mozilla Firefox or মজিলা ফায়ারফক্স এ বাংলা ফন্ট সমস্যা ও সমাধান

 মজিলা ফায়ারফক্স এ বাংলা ফন্ট সমস্যা করছে। ফন্টগুলো ফেটে যাচ্ছে আর খুব ছোট দেখাচ্ছে। অথচ IE তে ভাল আসছে। অমাইক্রোনল্যাব এর সব ইউনিকোড ফন্টই সেটআপ করা আছে। ফন্ট ফিক্সার দিয়েও ভ্রিন্দা রিপ্লেস করে সোলায়মানলিপি দেওয়া আছে। হঠাৎ করেই সমস্যাটা করছে। কোন কিছু নতুন করে সেটআপও করি নি।

ফায়ারফক্সের বাংলা ফন্ট সেটিংস ঠিক আছে?

Tools>> Options>> Content>> Click advanced in Fonts & Colors section>> Fonts for-Bengali

-এখান থেকে নীচের ছবির মত অপশনগুলো সেট করুন:
ছবি

Configure Mozilla Firefox for Bengali Font

1.Open mozila firefox browser
2.From Tools menu, select Options.
3.From this Options window, click on Contents.
4. Click on Advanced button in Fonts & Colors section.
undefined
5. Click on the drop down list for option Fonts For. Select Bengali from this list.
6. Complete all the option fields as in the following image (you may choose your any favourite Bangla font) and then click on OK.
undefined
Now your configuration complete.

MS এ পাবিপ্রবি ছাত্রদের জন্য BSMRAU তে আসা-নাআসার নির্দেশনা ।

MS এ পাবিপ্রবি ছাত্রদের জন্য BSMRAU তে আসা-নাআসার নির্দেশনা
সম্পূর্ণ নিজেশ্য মতামত

পাবিপ্রবি is BEST for us. তবে যদি কেও বাহিরে আসতে চাও তাদের জন্য কিছু কথা। BSMRAU একটি বাতিক্রমধর্মী বিশ্ববিদ্যালয়। এখানকার কিছু সুবিধা আসুবিধা নিয়ে লিখলাম।তবে মনে রাখা ভাল এদেশে এখনো MS এর তেমন কোন দাম নাই।এর থেকে জব এর জন্য পড়া আনেক ভাল।ডিগ্রি একটা থাকলেই হয়।
সিস্টেমঃ
১। এখানে প্রতি ৩ মাসের জন্য একটি টার্ম(সেমিস্টার)
২।প্রতি টার্ম এর পর ১৫ থেকে ৩০ দিন বন্ধ থাকে।
৩।সকল কার্যক্রম পূর্বনির্ধারিত রুটিন আনুসারে সম্পন্ন হয়।
৪। প্রতি টার্ম এ ২টা মিড (২৫+২৫) একটা ফাইনাল(৩০), একটা টার্ম পেপার(১০) এবং বাকি ১০ নম্বর কুইজ পরীক্ষার জন্য বরাদ্ধ।
৫। কুইজ এর কোন রুটিন নাই, সাধারনত ৫টি কুইজ হয় এবং বেস্ট ৪টা কাউন্ট করা হয়। পরীক্ষাগুলো লাস্ট ক্লাস বা লাস্ট কিছু ক্লাস এর উপর নেয়া হয়।তাই প্রতিদিন নিয়মিত কিছু সময় একাডেমিক পড়া পড়তে হয়। তাবে কুইজ এর ডেট অনেক সময় স্যার বলে দেন।
৬। মিড, কুইজ, ফাইনাল সবকিছুর প্রশ্ন প্রায় একই রকম, কোন প্রশ্ন এর উত্তর ২ বা ৩ লাইন এর বেশি নয়। খুব বড় হলে এক প্যারা। তাই টানা মুখস্ত না করলেও হয়।
৭। কুইজ এর জন্য পড়লে মিড বা ফাইনাল এর জন্য তেমন পড়া লাগেনা।
পড়ালেখার চাপঃ
১। চাপ নির্ভর করে একটা টার্ম এ কয়টা সাবজেক্ট বা Course তার উপর।
২। সাবজেক্ট বা Course নেওয়া স্টুডেন্ট এবং তার গবেষশণা উপর নির্ভর করে। টার্ম শুরুর আগেই আনেকগুলো করে Course অফার হয়। বিশাল লিস্ট থেকে পছন্দ অনুজাই ০,১,২,৩ বা তার বেশি Course নিতে পারবে।
৩। প্রতি Course  এর জন্য সপ্তাহে ৩টি ক্লাস। যদি তুমি ৩টা Course নাও তবে তোমার প্রতি সপ্তাহে ৩*৩=৯টা ক্লাস করতে হবে।
৪। প্রতি Department থেকে একজন ছাত্রকে ডিগ্রি নেওয়ার জন্য MS (phD আর MS একসাথে ক্লাস, phD তে শুধু Course বেশি)এ ১০ থেকে ১২ টি Course করতে হয়। Major এবং Elective Course এর বিশাল তালিকা থেকে তার পছন্দ আনুযাই Course বাছাই করতে হবে।
৫। কোন প্রাকটিকাল খাতা লেখা নেই তবে টার্ম পেপার আছে।
সময়কালঃ
১। যদি প্রতি টার্ম এ ৩টি করে Course নাও তবে ৩*৪=১২ টি Course করতে ৩+১=৪*৪=১৬ মাস লাগে।এর মাঝে প্রায় সবার গবেশনার কাজ প্রায় শেষ হয়। তাবে সেটা বেশ কষ্টকর আবার লাক এর উপর নির্ভর করে। যদি কোন Major Course  অফার না হয় তবে আপেক্ষা করতে হয়। চেষ্টা করলে ১৮ মাসেই ডিগ্রি নেয়া যায়।
২। তবে একবার ভর্তি হলে ৩ বছরের জন্য ঢাকার পাশে একটা সিট পাওয়া যায় বলে সবাই হলেই থাকে। চাকরি না পাওয়া পর্যন্ত ডিগ্রী নেয়না।
অবসর আর বিসিএস/জব প্রস্তুতিঃ
১।সপ্তাহে প্রায় ২-৪ দিন পুরো দন্ধ থাকে। এ সময়টা তোমার, যত খুশি বিসিএস পড়।  
২। ক্লাস চলার সময়ও মাত্র ৩ ঘণ্টা ক্লাস, বাকিটা তোমার।প্রতিদিন ২ ঘণ্টা বিসিএসপড়।
৩। গবেষশণা এর কাজ চলাকালে একটু খাটতে হয়।তারসাথে কুইজ এর একটা টেনশন সবসময়ই থাকে। এটাই সবথেকে বড় পেইন।
৪। প্রতি টার্ম এর পর ১৫ থেকে ৩০ দিন বন্ধ থাকে।এ সময়টাও তোমার, যা খুশি তাই কর(বিসিএসপড়)।
৫।বিনোদনের তেমন কোন সুযোগ না থাকায় পড়ালেখার সময়ের কোন অভাব নেই।তবে প্রেম করার পুরোপুরি সুযোগ পাবে (এখানে ৭৫% ই মেয়ে)।
যোগাযোগ সুবিধাঃ
১। ঢাকার কাছে ৩ বছরের জন্য একটা স্থায়ী ঠিকানা পাওয়া যায়, প্রতিদিন ঢাকায় সকাল বিকাল বাস আছে, BARI,BRRI তে ঘণ্টায় ঘণ্টায় বাস আছে।
২। যেকোনো জব পরীক্ষায় বাস ঢাকা যায়।
বিনোদনঃ
১।বিনোদনের তেমন কোন সুযোগ নাই , যোগাযোগ সুবিধা কাজে লাগাতে পারলে ভাল।
২। রাজনীতি না থাকায় তুমি যা খুশি তাই করতে পারবে তবে অবশ্যই বিশ্ববিদ্যালয়এর নিয়ম মানতে হবে। এখনে শিক্ষকরাই সকল ক্ষমতার আধিকারী।
আসল সমস্যাঃ
১। প্রতিদিন নিয়মিত বেশকিছু সময় একাডেমিক পড়া পড়তে হয়।অনেক অনেক সিট পড়তে হয়।
২।গবেষশণা এর কাজ চলাকালে একটু খাটতে হয়।তারসাথে কুইজ এর একটা টেনশন সবসময়ই থাকে। এটাই সবথেকে বড় পেইন।
৩। গবেষশণা এর কাজে ফাঁকি দেবার কোন সুযোগ নাই।কিন্তু এতে কোন মার্ক নাই।
৪।গ্রেড কেবল দুইটা A(৯১-১০০=৪) আর B(৮১-৯০=৩)।C থাকলেও তেমন কাউকে দেয়না।তবে ক্লাস করলে ৯১ পাওয়া তেমন কিছুনা।
৫। সময় বেশি লাগে, দুই বছর লাগা খুব স্বাভাবিক।
খরচঃ
১।প্রতি মাসে ৩-৪,০০০ টাকা বা পাবিপ্রবির মত হলেই ভালভাবে চলে।
২।প্রতি টার্মে ৩*৩=৯ ক্রেডিট হলে এর জন্য প্রায় ৩ হাজার টাকা।
৩। প্রথম ভর্তি ফি প্রায় ১০,০০০ টাকা।
৪।প্রতি টার্মে প্রায় ১৫০০টাকা বৃত্তি আছে।
৫। সব Course A পেলে প্রায় ৬,০০০টাকা বৃত্তি আছে।
৬।বড় বড় বৃত্তি আছে, তাবে তা রেজাল্ট আর ভাগ্য লাগে।
৭। ১,০০০ টাকার প্রাইভেট পাওয়া যায় তবে ভাল (২,০০০-৪,০০০টাকা)প্রাইভেট পাওয়া কঠিন।
৮। প্রজেক্ট এ কাজ করতে পারলে ভাল টাকা পাওয়া যায় তবে প্রচুর সময় দিতে হয়।
৯। খুব বেশি কষ্ট করতে পারলে Part Time Job করা যেতে পারে।
সম্পূর্ণ নিজেশ্য মতামত প্রদানে
মোঃ মামুনুর রেজা
 Md. Mamunur Reza
B.Sc. Ag. (Hons.) [PSTU, Bangladesh]
MS in Horticulture [BSMRAU]
Contact: (+880-191) 1152367
 এই লেখাটি কোথায় পাবেন? ব্লগঃ bdlinktoolbar.blogspot.com